সমস্ত সরকারী চাকরীর জন্য প্রযোজ্য-পশ্চিমবঙ্গের ভূগোল//Geography of westbengal

Funda Tips-এ আপনাদের সবাইকে স্বাগতম। আমাদের সাইটে বাংলা ভাষায় চাকরীর খবর ও চাকরী প্রস্তুতির বিভিন্ন ধরণের প্রশ্ন উত্তর সংকলন করা হয়। পড়াশুনা সংক্রান্ত নানান তথ্য, চাকরীর প্রস্তুতির এক অনবদ্য ওয়েব পোর্টাল হল ‘Funda Tips’। তাই আপনারা ইমেইলের মাধ্যমে আমাদের ওয়েবসাটটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন, তাহলে আপনারা চাকরী সংক্রান্ত সমস্ত নতুন পোস্ট ইমেইলের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন।

আজকের পোস্টে ভূগোলের উপর ৮০ টি গুরুত্বপুর্ন প্রশ্নত্তোর পোস্ট করা হল এবং সাথে তার PDF। আশা করব পোস্টটি আপনাদের উপকারে লাগবে।

ভূগোল – Geography

 পশ্চিমবঙ্গের ভূগোল 

1. বাংলার যে জেলার ওপর দিয়ে কর্কটক্রান্তি রেখা গেছে – নদিয়া, বর্ধমান, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া
2. বাংলার পূর্বদিকে অবস্থিত দেশ হল – বাংলাদেশ ।
3. বর্তমানে বাংলার জেলার সংখ্যা হল – 23টি ।
4. উত্তর – পূর্ব ভারতের প্রবেশ দ্বার বলা হয় – শিলিগুড়িকে ।
5. দক্ষিণবঙ্গের প্রবেশ দ্বার হল – ক্যানিং ।
6. বিহার রাজ্যের বিচ্ছিন্ন অংশটি বাংলায় যে জেলা নামে পরিচিত – পুরুলিয়া ।
7. বাংলার ওপর লম্বভাবে সূর্যকিরণ পড়ে – 21 শে জুন ।
8. সুন্দরবন ম্যানগ্রোভ বাদাবন অবস্থিত যে জেলায় – দক্ষিণ 24 পরগনা ।
9. প্রেসিডেন্সি বিভাগের অন্তর্গত জেলাসদর হল – আলিপুর ।
10. ‘Chicken’s Neck’ বলা হয় – উত্তর দিনাজপুরের চোপড়াকে ।
11. ‘City of Joy’ বলা হয় – কলকাতাকে ।
12. বাংলার উত্তরের সমভূমি অংশ হল – বরেন্দ্রভূমি ।
13. বাংলা ও নেপাল সীমান্তে রয়েছে – সিঙ্গলিলা ।
14. বাংলার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ – সান্দাকফু ।
15. বাংলার মালভূমি অঞ্চলের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ হল – গোর্গাবুরু ।
16. বাংলায় বালিয়াড়ি দেখা যায় – উপকূলীয় সমভূমিতে ।
17. রাঢ় সমভূমির ভূপ্রকৃতি – তরঙ্গায়িত ।
18. কালিম্পঙ -এর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ হল – ঋষিলা ।
19. বক্স গিরিখাত দিয়ে যাওয়া যায় – ভুটানে ।
20. বক্রেশ্বরের উষ্ণ প্রস্রবণ দেখা যায় – বীরভূমে ।
21. পেডং কথার অর্থ – অর্কিডের শহর ।
22. তরাই শব্দের অর্থ – স্যাঁতসেঁতে ভূমি ।
23. শুশুনিয়া পাহাড় অবস্থিত – বাঁকুড়া জেলায় ।
24. দার্জিলিং পার্বত্য অঞ্চলের সর্বোচ্চ Rail Station হল – ঘুম ।
25. রাঙামাটির দেশ বলা হয় – রাঢ় অঞ্চলকে ।

26. মথুরাখালি পাহাড় অবস্থিত – বীরভূমে ।
27. গঙ্গা দুভাগে বিভক্ত হয়েছে মুর্শিদাবাদের – ধুলিয়ানে ।
28. গঙ্গা বাংলায় প্রবাহিত হয়েছে – 520 কিমি ।
29. বাংলার প্রধান নদী – গঙ্গা ।
30. দামোদরনদকে বলা হয় – বাংলার দুঃখ ।
31. বহরমপুর বিখ্যাত – রেশম শিল্পের জন্য ।
32. রাঢ় অঞ্চলের সবচেয়ে বড়ো শহর হল – বর্ধমান ।
33. বাংলার দুটি প্রধান মৎস্য শিকার কেন্দ্র হল – দিঘা ও জুনপুট ।
34. ভারতে প্রথম পাতাল রেল চালু হয় – কলকাতায় ।
35. হলদিয়া বিখ্যাত – পেট্রোরসায়ন শিল্পের জন্য ।
36. কৃষ্ণনগর বিখ্যাত – মৃৎ শিল্পের জন্য ।
37. জলপাইগুড়ি শহর অবস্থিত – তিস্তা ও করলা নদীর তীরে ।

38. শংকরপুর একটি – মৎস্য বন্দর ।
39. বাংলায় প্রাণী ও মৎস্যবিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থিত – কলকাতায় (বেলগাছিয়া) ।
40. লোথিয়ান আইল্যান্ড অভয়ারণ্যটি অবস্থিত – দক্ষিণ 24 পরগনায় ।
41. বক্সা অভয়ারণ্যটি স্থাপিত হয় – 1986 সালে ।
42. বার্ড ফ্লু নির্ণয় কেন্দ্রটি অবস্থিত – কলকাতার বেলগাছিয়ায় ।
43. দমদম বিমান বন্দরের পত্তন হয়েছিল – 1875 সালে ।
44. বাংলায় ধানের বউল বলা হয় – বর্ধমানকে ।
45. জয়ন্তি হল – সংরক্ষিত বনভূমি ।
46. সুন্দরবন হল – সুরক্ষিত বনভূমি ।
47. খোয়াই অঞ্চল দেখা যায় – বীরভূম জেলায় ।
48. উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের অধিক কাদাযুক্ত মাটি – খিয়র নামে পরিচিত ।
49. তাল শব্দের অর্থ – জলাভূমি ও নিম্নভূমি ।
50. সুন্দরবনের যেসব অঞ্চলে কৃষিকাজ হয়, তাকে – আবাদ বলে ।
51. বাংলায় সবচেয়ে কম বৃষ্টি হয় – বীরভূমের ময়ূরেশ্বরে ।
52. বাংলায় সবচেয়ে বেশি উষ্ণতা দেখা যায় – আসানসোলে ।
53. মৌসুমি রাজ্য বলা হয় – বাংলাকে ।
54. খরার জেলা বলা হয় – পুরুলিয়াকে ।

55. বাংলায় সর্বাধিক বৃষ্টিপাত হয় – বক্সা ডুয়ার্সে ।
56. করোনেশন ব্রিজ অবস্থিত – তিস্তা নদীর ওপর ।
57. কানা নদীর মধ্যবর্তী ও শেষ অংশের নাম – কুন্তী নদী ।
58. দামোদরের প্রধান উপনদীর নাম – বরাকর ।
59. সুন্দরবন অঞ্চলের বৃহত্তম জলবহনকারী নদী হল – মাতলা ।
60. অজয়নদ -এর উৎপত্তি – দুমকা উচ্চভূমি থেকে ।
61. 2011 জনগণনা অনুসারে বাংলার বেশি জনসংখ্যাযুক্ত জেলা হল – উত্তর 24 পরগনা (10082852 জন) ।
62. 2011 জনগণনা অনুসারে বাংলার কম জনসংখ্যাযুক্ত জেলা হল – দক্ষিণ দিনাজপুর (1670931 জন)
63. 2011 জনগণনা অনুসারে বাংলার জনসংখ্যা ছিল – 91347736 জন (পুরুষ=46927389জন এবং মহিলা=44420347 জন) ।
64. জনঘনত্ব = 1029 জন/sq km.
65. জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার এক দশকে = 13.93%
66. স্ত্রী – পুরুষের অনুপাত = 947:1000

67. সাক্ষরতার হার = 77.08% (পুরুষ =82.67% এবং স্ত্রী =71.16%) ।
68. শিক্ষার হার বেশি – পূর্ব মেদনীপুর জেলায় (87.66%) ।
69. শিক্ষার হার কম – উত্তর দিনাজপুর জেলায় (60.13%) ।
70. বাংলার দুটি SEZs হল – হলদিয়া ও আসানসোল শিল্পাঞ্চল ।
71. বাংলার দুটি ম্যানগ্রোভ অরণ্যের গাছ হল – সুন্দরী ও গরাণ ।
72. বাংলার দুটি অর্থকারী ফসল হল – চা ও পাট ।
73. উত্তরবঙ্গের দুটি নদী যার জলপ্রবাহ ব্রহ্মপুত্র নদে মিলিত হয়েছে – তিস্তা ও তোর্সা ।
74. বাংলায় বিটুমিনাস কয়লা পাওয়া যায় – রাণীগঞ্জ ।
75. ভারতের শেফিল্ড বলা হয় – হাওড়া শহরকে ।
76. সুন্দরবনের আতঙ্ক বলা হয় – মাতলা নদীকে ।
77. বাংলার নবীনতম জেলা – পশ্চিম বর্ধমান (Feb, 2017) ।
78. বাংলার দীর্ঘতম ব্যারেজ – ফারাক্কা ব্যারেজ ।
79. বাংলার দীর্ঘতম সেতু – রূপনারায়ণ সেতু ।
80. বাংলার দীর্ঘতম রেলওয়ে প্ল্যাটফর্ম হল – খড়গপুর।

 

এখানে ক্লিক করে পোস্টটির PDF ডাউনলোড করুন-  http://fundatips.com

বিঃ দ্রঃ– Funda Tips-এর উদ্দেশ্য ডিজিটাল মাধ্যমে চাকুরীর প্রস্তুতি কে সমগ্র বাংলার ছাত্র-ছাত্রীর কাছে পৌঁছে দেওয়া। তাই সবাই কে অনুরোধ করব, পোস্টটি নীচের শেয়ার বাটনে ক্লিক করে নিজের বন্ধুদের কাছে শেয়ারের মাধ্যমে বাংলার প্রতিটি চাকুরী প্রার্থীর কাছে পৌঁছে দিন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *