ট্রেনের পিছনের এইরকম “X” চিহ্ন কেন থাকে জানেন ? জেনে নিন

আমরা প্রতিনিয়ত ট্রেনে চড়ে এক জায়গা থেকে আর এক জায়গা যাতায়াত করে চলেছি। আপনারা ট্রেনে যাতায়াত করার সময় ট্রেনের পেছনে এই X-চিহ্নটি দেখে থাকবেন। কখনো কি ভেবে দেখেছেন ট্রেনের পেছনে এই X-চিহ্নটি কেনো দেওয়া হয়েছে, এর কি কাজ ? ব্রিটিশ আমলে চালু হওয়া ট্রেন আজ আমাদের দেশে যাতায়াত এর প্রধান মাধ্যম, অবশ্য শুধু ভারতেই নয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আজও ট্রেন সাধারণ জনগণ এর কাছে অপরিহার্য!

ভারতে প্রতিদিন প্রায় ১ কোটি লোক ট্রেন মারফত যাতায়াত করেন, লোকাল ট্রেন ছাড়াও দূর দূরান্তে যেতে এক্সপ্রেস ট্রেনের সাহায্য নেওয়া হয়ে থাকে, অল্প খরচে গন্তব্যে পৌছাতে আজও ট্রেনের জুড়ি মেলা ভার!

ট্রেনের পিছনের এই X-চিহ্নটি আমাদের সকলেরই চোখে পড়েছে, বিশেষত দূরপাল্লার ট্রেন-এ এই চিহ্নটি আমরা সকলেই দেখেছি, কিন্তু জানা হয়ে ওঠেনি এটি কেন থাকে!

তবে চলুন আজ জেনেনিই, আর একটি কথা, পোস্ট-টি ভালো লাগলে সকলের সাথে শেয়ার করবেন প্লিজ!

ট্রেন পেছনে x চিহ্ন কেন থাকে?

ট্রেন-এর শেষে এই ক্স চিহ্নটি ব্যবহার করা হয় যাত্রী সুরক্ষার কথা ভেবে, খবরের কাগজে হামেশাই শোনাযায় “অমুক ট্রেন এর ২ টি বগি লাইনচুত্য হয়েছে”, এই জিনিসটি-র কথা ভেবেই চিহ্নটির ব্যবহার শুরু হয়েছে,

ট্রেনের পিছনে লেখা X-এর উদ্দেশ্য হল-  এটা ট্রেন-এর শেষ বগি। কারণ, অনেক সময় ট্রেন-এর অনেক বগি লাইনচুত্য হয়ে যায় আর ট্রেন থেকে আলাদা হয়ে যায়। আবার অনেক সময় ট্রেন-এর মাঝখানে লাগানো হুক ভেজ্ঞে যায়। যার ফলে ট্রেন-এর সেই বগি রাস্তাতেই থেমে যায়। এমনটা হওয়ার কারণে, অনেক মানুষের শরীরে মারাত্মক আঘাত লেগে থাকে। কেউ সারাজীবনের জন্য আহত হয়ে যায়, এমনকি কিছু মানুষের মৃত্যুও হয়ে যায়। যখন ট্রেন এক  স্টেশন থেকে বের হয়। তখন স্টেশনের মাস্টার ট্রেনকে শেষ পর্যন্ত দেখে। আর যদি ট্রেন থেকে ঐ X-এর নিশান না থাকে, তখন সে তৎক্ষণাৎ রেল বিভাগকে খবর করে।

এবং পরে Emergency ঘোষণা করে দেওয়া হয়। ঐ লাইনের উপর আশা সকল ট্রেনকে রুখে দেওয়া হয়। দিনের বেলায় এটা পরিষ্কার ভাবে দেখা যায়। কিন্তু রাতের সময় “X”কে দেখা অনেক কঠিন হয়ে পরে। এর জন্য রাতের ট্রেন গুলোর শেষ বগি দেখার জন্য, “X”-এর নিচে এক লাল রঙ্গের আলো লাগিয়ে দেওয়া হয়। যেটা টিপ টিপ করে  জ্বলতে থাকে। যার ফলে জানা যায় যে, এই ট্রেনটি সম্পূর্ণ হয়ছে। আর মাঝখানে ভাজ্ঞা নেই।

এই “X” চিহ্নটি দেখে রেলকর্মী রা বুঝতে পারেন যে ট্রেনটি সম্পূর্ণ রয়েছে, কোনো কারণে অজান্তে কোনো বগি মূল ট্রেন থেকে আলাদা হয়ে পিছনে থেকে যায়নি, অতএব যাত্রী সাধারণ সুরক্ষিত ভাবে যাতায়াত করছেন! যাত্রীদের কথা চিন্তা করেই রেল কর্তিপক্ষ এই ব্যাবস্থা গ্রহন করেছে।

পোস্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *