জানুন নাক-কানে গয়না পরার উপকারিতা

শাড়ির সঙ্গে নাকে, কানে মানানসই দুল পড়ে থাকেন বাঙালি নারীরা। এটি তাদের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দেয় কয়েকগুণ। তবে আমরা অনেকেই হয়তো জানি না যে নাকে কানে অলঙ্কার পরার অনেক ইতিবাচক দিকও আছে। বিজ্ঞানসম্মতভাবে এই নিয়মগুলির অনেক উপকারিতা রয়েছে।

যেমন- নাকে, কানে দুল পরলে তা আকুপাংচারের কাজ করে। অর্থাৎ শারীরিক এবং মানসিক নানা সমস্যার সমাধান করতে সাহায্য করে। এখানেই শেষ নয়, কানে দুল পরলে আমাদের কানের লতিতে চাপ পড়ে। এর ফলে আমাদের খিদে বাড়ে এবং হজম প্রক্রিয়ার উন্নতি ঘটে। এর কারণ আমাদের কানে হাঙ্গার পয়েন্ট থাকে।

এরকমই বেশ কিছু জাদুকরী সুফল সম্পর্কে জানিয়েছে জীবনধারা বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘বোল্ডস্কাই’। আসুন জেনে নিই কীভাবে নাক আর কানের দুল আমাদের সুস্থ থাকতে সাহায্য করে।

১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে: 

কানের ঠিক মাঝামাঝি অংশে দুল পরা খুবই ভাল। কানের এই অংশটিতে ক্রমাগত চাপ পড়তে থাকলে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। অন্যদিকে, নারীদের ক্ষেত্রে অনিয়মিত ঋতুস্রাবের সমস্যা দূর হয় কানে দুল পরলে।

২. ঋতুস্রাবকালীন যন্ত্রণা দূর করে: 

নাকের বাম দিকে নাকছাবি পরলে তা ঋতুস্রাবকালীন যন্ত্রণা দূর করতে সাহায্য করে। এই কথাটি শুনতে হয়তো আজবল লাগতে পারে, কিন্তু অনেকের ধারণা বাস্তবিকই নাকছাবির সঙ্গে এমন ধরনের যন্ত্রমার বাড়া-কমার সরাসরি যোগ রয়েছে।

৩. সন্তান ধারণের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়: 

বিজ্ঞানসম্মতভাবে নারীদের নাকের বাম দিক জনন অঙ্গের সঙ্গে যুক্ত। এই কারণে নাকে নাকছাবি পরলে তা সরাসরি জনন প্রক্রিয়ায় প্রভাব বিস্তার করে। ফলে নারীদের গর্ভধারণে কোনও সমস্যা থাকলে তা প্রতিহত হয়, সেই সঙ্গে সহজে গর্ভধারণের পথ প্রশস্ত হয়।

৪. মনে রাখার ক্ষমতা বাড়ে: 

কানে দুল পরলে শুধু যে সুন্দর দেখায়, তা কিন্তু নয়! এটি আমাদের স্মরণশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। আসলে দুল পরর কারণে মস্তিষ্কের বিশেষ বিশেষ অংশে রক্তের প্রবাহ বেড়ে যায়। ফলে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের জোগান বেড়ে যাওয়ার কারণে স্বাভাবিকভাবেই ব্রেন পাওয়ার বৃদ্ধি পায়।

৫. স্পার্ম কাউন্ট বেড়ে যায়: 

অনেক পুরুষকেই কানে দুল পরতে দেখা যায়। কেউ পরেন বংশ পরম্পরার কারণে, তো কেউ পরেন শুধুই ফ্যাশনের খাতিরে। তবে কারণ যাই হোক না কেন, বেশ কিছু কেস স্টাডিতে দেখা গেছে পুরুষেরা কানে দুল পরলে স্মার্ম কাউন্ট চোখে পড়ার মতো বৃদ্ধি পায়। ফলে বাচ্চা হওয়া ক্ষেত্রে কোনও অসুবিধাই হয় না।

৬. শ্রবণ ক্ষমতা বাড়ে: 

কানের ছিদ্রে যে আকুপাংচার পয়েন্ট থাকে, তাকে মাস্টার সেন্সর এবং মাস্টার সেরেব্রাল বলা হয়ে থাকে। কানের এই অংশটিই আমাদের শ্রবণ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। সেই কারণেই তো কানে দুল পরলে শ্রবণশক্তির উন্নতি ঘটে। শুধু তাই নয়, বিশেষজ্ঞদের মতে কানে দুল পরলে ধনুষ্টঙ্কার রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।

৭. প্রসব যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মেলে: 

নাকের বাম দিকে নাকছাবি পরলে প্রসব যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, এমনই বিশ্বাস প্রচলিত রয়েছে ভারতের বহু গ্রামাঞ্চলে। তারা মনে করেন, নাকছাবি পরলে সন্তান প্রসব অনেকটাই বেদনাহীন হয়ে যায়।

৮. দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটে: 

আকুপাংচারের নিয়ম অনুযায়ী, কানের মধ্য অংশের সঙ্গে সরাসরি চোখের যোগ থাকে। এই কারণেই তো কানের এই অংশে দুল পরলে দৃষ্টিশক্তি উন্নতি ঘটতে শুরু করে।

বলা হয় কানের লতিতে যে নার্ভটি রয়েছে তা কিডনি, ব্রেন এবং সার্ভিক্সের সঙ্গে যুক্ত তাই মেয়েদের দুল পরা ভাল।

   

পোস্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *